দুই টাকার দ্বন্দে দোকানদার দম্পতিকে পিটিয়ে জখম।

দুই টাকার দ্বন্দে দোকানদার দম্পতিকে পিটিয়ে জখম।

দুই টাকার জন্য দোকানি দম্পতিকে পিটিয়ে জখম করেছে এলাকার কতিপয় যুবক। নওগাঁর মান্দায় এ ঘটনায় আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার মৈনম ইউনিয়নের ডাকাতের মোড়ে দোকানঘরে হামলা, ভাঙচুর ও মারধরের এ ঘটনা ঘটে। পরে এদিন রাতেই ১০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে মান্দা থানায় এজাহার করেছে ভুক্তভোগীরা।

আহত ভুক্তভোগীরা হলেন রেজাউল ইসলাম সরদার (৫৫) ও তাঁর স্ত্রী বুলু বেগম (৫০)। তাঁরা মৈনম ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে তাঁরা ডাকাতের মোড়ে ব্যবসা করে আসছিলেন।

আহত রেজাউল ইসলাম বলেন, ‘রামপুর গ্রামের ভুলু সরদার মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দোকানে এসে একটি পান, একটি শিঙাড়া ও দুধ চা খান। এতে তাঁর বিল দাঁড়ায় ১৭ টাকা। কিন্তু ভুলু সরদার ১৭ টাকার পরিবর্তে ১৫ টাকা দিতে চান। এ নিয়ে আমার সঙ্গে ভুলু সরদারের কথা-কাটাকাটি হয়।’

রেজাউল ইসলাম আরও বলেন, ‘একপর্যায়ে ভুলু সরদার টাকা না দিয়ে দোকান থেকে এক প্যাকেট পাউরুটি ও এক কার্টন সেভেনআপ নিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় বাধা দেওয়ায় তাঁদের মধ্যে হাতাহাতি ও ধাক্কাধাক্কি হয়। এ সময় স্থানীয় লোকজন এসে উভয়কে সরিয়ে দেন।’
আহত ব্যবসায়ী রেজাউল ইসলাম বলেন, হামলাকারীরা তাঁর ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ভাঙচুরসহ অন্তত দেড় লাখ লুট করে নিয়ে যায়। এ ছাড়া আরও লাখ টাকার মালামালের ক্ষতি করে।

স্থানীয়রা জানান, এর কিছুক্ষণ পর ভুলু সরদারের নেতৃত্বে ১০-১২ ব্যক্তি সংঘবদ্ধ হয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে রেজাউল সরদারের দোকানে হামলা চালায়। হামলাকারীরা দোকানদার রেজাউল ইসলাম ও তাঁর স্ত্রী বুলু বেগমকে পিটিয়ে জখম করে। এ সময় চায়ের স্টল ও মুদিখানার দোকানে ভাঙচুর চালিয়ে মালামাল তছনছ করে দেওয়া হয়।’

ঘটনার পরপরই গা-ঢাকা দিয়েছেন অভিযুক্ত ভুলু সরদার। এ কারণে তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহিনুর রহমান বলেন, ‘এ-সংক্রান্ত একটি এজাহার পেয়েছি। ঘটনাটি তদন্তের জন্য থানার উপপরিদর্শক নজরুল ইসলামকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্তের পর আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’


Leave a Reply

Your email address will not be published.